February 25, 2024, 4:23 am

ছাগলনাইয়া উপজেলা পরিষদের ৪ র্থ ধাপের স্থগিত হওয়া নির্বাচন ১৮ জুন।  

২৮ মে ২০১৯, বিন্দুবাংলা টিভি. কম ,
সৈয়দ কামাল,ফেনী থেকেঃপঞ্চম উপজেলা নির্বাচনে চতুর্থ ধাপে ভোট গ্রহণ স্থগিত হওয়া উপজেলা গুলির মধ্যে একটি ছিলো ছাগলনাইয়া উপজেলা।এই উপজেলায় উপজেলা চেয়ারম্যান পদে সরকার দল মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল এর সাথে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করার লক্ষে,এডভোকেট শহিদ উল্যা ও আবদুল হালিম নামে এই দুইজন স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে,ফেনী জেলা রিটার্নিং অফিসার হিসেবে দায়িত্ব প্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ওয়াহিদুজ্জামান এর হাতে মনোনয়ন পত্র দিয়েছিলেন।ওই সময় মনোনয়ন পত্র যাচাই-বাছাই ও প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষদিন,যাচাই-বাছাইতে এই দুই প্রার্থীর মনোনয়ন পত্রে অ-পূর্ণতা থাকায়,জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা দুই জনেরই মনোনয়ন পত্র বাতিল ঘোষনা করেন।পরবর্তীতে প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দের দিন ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান পদে অন্য কোন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায়, মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেলকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় দ্বিতীয় বারের মত ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে বিজয়ী ঘোষনা করেন,ফেনী জেলা রিটার্নিং অফিসার।
নিজেদের মনোনয়ন পত্র বাতিল ঘোষনার বিষয়টি মেনে না নিয়ে স্বতন্ত্র ওই দুই প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্র বৈধ করণের লক্ষে উচ্চ আদালতে মামলা করায়, বিষয়টি নিয়ে জটিতলা সৃষ্টি হওয়ার কারণে ছাগলনাইয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট গ্রহণ স্থগিত হয়ে যায়।দুই প্রার্থী তাদের মনোনয়ন পত্রের বৈধতা নিয়ে এবং অপর প্রার্থী তার বিজয়ী হওয়ার ঘোষনাটি অব্যাহত রাখতে দীর্ঘদিন যাবত মামলা চালিয়ে যাচ্ছিলেন।শেষ পর্যন্ত মামলাটির অবসান ঘটলো গত ২২ মে তারিখে।এইদিন উল্লেখিত মামলাটির বিষয় সুপ্রীম কোর্টের রায়ে,ফেনী জেলা রিটার্নিং অফিসার,ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল কে নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে যে,ঘোষনা দিয়েছিলেন,সেই ঘোষনা বহাল রেখে,আগামী ১৮ জুন ছাগলনাইয়া উপজেলায় শুধুমাত্র ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) ও ভাইস চেয়ারম্যান (মহিলা) পদে ভোট গ্রহণে নির্দেশ প্রদান করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য করুন


ফেসবুকে আমরা