February 25, 2024, 4:50 am

সাংবাদিকতায় অভদ্রতার জায়গা নেই, বললেন নাঈমুল ইসলাম খান

৪ আগস্ট ২০১৯ বিন্দুবাংলা টিভি. কম, ডেস্ক রিপোর্ট      : কারো কাছ থেকে সহজে তথ্য পেয়ে গেলে, সেটা সাংবাদিকতার জন্য হুমকি। বরং বাঁধা বিঘ্ন পেরিয়ে কোনো তথ্য বের করার নামই সাংবাদিকতা।রোববার কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে একথা বলেন দৈনিক আমাদের নতুন সময় এর সম্পাদক নাঈমুল ইসলাম খান।

‘সাংবাদিকায় পেশাগত সুরক্ষা: বর্তমান প্রেক্ষাপটথ বিষয়ক সেমিনারটিতে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান বেলাল হুসাইনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এমরান কবির চৌধুরী । এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সমাজক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মাসুদা কামাল, কলা ও মানবিক অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. জি এম. মনিরুজ্জামান, প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মো. শামিমুল ইসলাম এবং বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ।

নাঈমুল ইসলাম খান আরো বলেন, সাংবাদিকতায় পেশাগত কোনো সুরক্ষা থাকতে পারে না। এখানে চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ করতে হয়। নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে ঘরে বসে সাংবাদিকতা করার নাম সাংবাদিকতা নয়। সাংবাদিকতায় অভদ্রতার জায়গা নেই। এখানে ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে কাজ করতে হবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী বলেন, আমি বিশ্বাস করি সাংবাদিকতার কারণে স্বচ্ছতা নিশ্চিত হয়। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপার সম্ভাবনা রয়েছে। নেগেটিভ জিনিসের প্রতি না ছুটে, পজিটিভ জিনিসের প্রতি মনোযোগ দাও। তাহলেই সমাজ, দেশ ও জাতির উন্নতি হবে।

অনুষ্ঠানের সভাপতি সাংবাদিকতা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান বেলাল হুসাইন সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন এবং ভবিষ্যতে এমন সেমিনার অনুষ্ঠান বৃহৎ পরিসরে করার আশা ব্যক্ত করেন।

সেমিনারের পর বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে মুক্ত আলোচনার আয়োজন করা হয়। এছাড়াও বিভাগের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজন করা হয়েছে।

সেমিনারের মিডিয়া পার্টনার ছিল এমসিজে নিউজ। এছাড়াও সার্বিক সহযোগিতায় ছিল জনপ্রিয় অনলাইন পোর্টাল স্টুডেন্ট জার্নাল বিডি, ভার্সিটি বয়েস ও মার্ভেলার ট্যুরস অ্যান্ড এডভেঞ্চার।


আপনার মতামত লিখুন :

মন্তব্য করুন


ফেসবুকে আমরা